চার্জে আগানো আইফোন বাথটাবে পরে রাশিয়ান নারীর মৃত্য || TIPSGURUBD.COM

0

 

প্রযুক্তির কল্যানে বিশ্বজুড়ে দিনকে দিন দিন বেড়েই চলেছে স্মার্টফোনের ব্যবহার। আধুনিক প্রযুক্তির সহজলভ্যতার কারণে ধীরে ধীরে আমাদের দৈনন্দিন জীবনকে যেন ঘিরে বসেছে এই স্মার্টফোন। এতে দিন দিন মানুষের মাঝে জন্ম নিচ্ছে এক প্রকার স্মার্টফোনের আসক্তি। আর কোনো আসক্তিরই চূড়ান্ত ফলাফল কখনো ভালো হয় না। আমাদের অনেকেরই হয়তো বাথরুম কিংবা টয়লেটে স্মার্টফোন ব্যবহারের বদ অভ্যাস রয়েছে। স্মার্টফোনের আসক্তির কারণে প্রতিনিয়তই ঘটে যাচ্ছে একের পর এক দুর্ঘটনা।

এরই ধারবাহিকতায় সম্প্রতি সামনে এসেছে স্মার্টফোনের আসক্তির কারণে ঘটে যাওয়া আরেকটি দুর্ঘটনার খবর। সম্প্রতি বাথরুমে মোবাইল ব্যবহারের এই বদ অভ্যাসের মূল্য হিসেবে নিজের জীবন দিতে হয়েছে রাশিয়ান নাগরিক ‘ওলিসা সেমেনোভা’কে। জানা যায় স্মার্টফোন ব্যবহারে মারাত্মক আসক্তি ছিলো ২৪ বছর বয়সী সেমেনোভার। এমনকি তিনি এতটাই আসক্ত ছিলেন যে বাথরুমে বসে মোবাইল চালানোর জন্য সেখানেও ফোন চার্জিং এর ব্যবস্থা করেছিলেন।

 

কিছুদিন আগে বাথটাবে বসে তার আইফোনটি চার্জে লাগিয়ে ব্যবহারের সময় সেটি হঠাৎ পানিতে পরে যায়। আর এতেই বৈদ্যুতিক শক খেয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পরে ‘ওলিসা সেমেনোভা’। পরবর্তীতে তার রুমমেট যখন তাকে খুঁজে পায় ততক্ষণে সে দুনিয়া ছেড়ে চলে গিয়েছে। তার রূমমেট ডাড়িয়ে বলেছেন, ‘সেমেনোভা’কে পানি থেকে উঠানোর সময় আমি নিজেও বৈদ্যুতিক শক খাই।’ তিনি আরও বলেন, তাকে এরকমভাবে দেখে আমি চরম ভয় পেয়েছি, এবং সাথে সাথে ইমার্জেন্সি অপারেটরদেরকে বিষয়টি সম্পর্কে অবগত করেছি।

এদিকে সম্প্রতি রাশিয়ান মন্ত্রণালয় এই ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করে একটি বিবৃতিতে জানায়, এই দুঃখজনক ঘটনা আরও একবার আমাদের স্মরণ করিয়ে দেয় ইলেকট্রিক ডিভাইস ব্যবহারে আমাদের কতটা সতর্ক থাকা উচিত। উল্লেখ্য, এ ধরনের মৃত্যুর ঘটনা এবারই প্রথম নয়। গত আগস্টেও রাশিয়ায় এভাবেই মৃত্যু হয় ১৫ বছর বয়সী স্কুলছাত্রী আ্যানা কে এর।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂

Leave A Reply

Your email address will not be published.