ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপ বিক্রিতে বাধ্য করা হতে পারে ফেসবুককে || TIPSGURUBD.COM

0

 

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্ট ফেসবুকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে আমেরিকার ফেডারেল ট্রেড কমিশনে। ফেসবুকের বিরুদ্ধে এই মামলাটি দায়ের করেছেন ওয়াশিংটন ডিসি, গুয়ামসহ আরো ৪৬ টি অঙ্গরাজ্যের এটর্নি জেনারেলরা। মূলত ফেসবুক প্রিডেটর স্ট্র্যাটেজির মাধ্যমে বাজারে ছোট কোম্পানিগুলোর সুযোগ দখল করছে এবং এর মাধ্যমে বাজারে প্রতিযোগিতামূলক পরিবেশ নষ্ট করছে।

ফেসবুকের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে বলা হয়, ফেসবুক তাদের সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং মনোপলি কাজে লাগিয়ে এই শিল্পে এন্টি-কোম্প্যাটেটিভ আচরণ লঙ্ঘন করছে। বাজারে নিজেদের একচেটিয়া ব্যবসা প্রতিস্থাপন করতে ২০১২ সালে ১ বিলিয়ন ডলারে ইনস্টাগ্রাম এবং ২০১৪ সালে ১৯ বিলিয়ন ডলারে হোয়াটসঅ্যাপ কিনে নিয়েছিল ফেসবুক। তারা তাদের পুরোনো ‘সিস্টেমেটিক স্ট্রাটেজির’ অপব্যবহার করে এখন ছোট কোম্পানিগুলোকে ক্ষতিরমুখে ঠেলে দিচ্ছে।

 

নিউইয়র্কের অ্যাটর্নি-জেনারেল লেটিয়া জেমস এই প্রেক্ষিতে বলেন, “সংস্থাগুলির এই ধরনের ক্ষতিকর অধিগ্রহণকে বাধা দেওয়া খুবই জরুরি এবং বাজারের ছোট প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতি আস্থা ফিরিয়ে আনাটাও এখন অত্যন্ত প্রয়োজনীয় ব্যাপার।” তিনি আরও বলেন, ফেসবুকের একচেটিয়া বাজার রুখতে তাদের অন্যতম জনপ্রিয় ফটো শেয়ারিং অ্যাপ ইনস্টাগ্রাম ও মেসেজিং অ্যাপ হোয়াটসঅ্যাপকে নিজেদের থেকে আলাদা করতে হবে।

এদিকে সম্প্রতি ফেসবুকের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করে বলা হয়েছে, “ইউজারদের কাছে নিজের ইচ্ছে অনুযায়ী যেকোনো সময় যেকোনো সময় অ্যাপে সুইচ করতে পারেন, আমরা কাউকে আমাদের পরিষেবা ব্যবহার করতে জোরাজোরি করছি না।” যদিও বর্তমান বাজারে ইনস্টাগ্রামের আসলেই বিকল্প নেই বা হোয়াটসঅ্যাপের মতো কোনও মেসেজিং পরিষেবা বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় নয়।

বন্ধুদের সাথে নিউজটি শেয়ার করতে ভুলবেন না। আমরা অনুপ্রাণিত হব 🙂

Leave A Reply

Your email address will not be published.